রাষ্ট্র সংস্কার কাজ চলতেছে, সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত

সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা পুনর্বহালের রায় বাতিল এবং কোটাপদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে জামালপুর-দেওয়ানগঞ্জ মহাসড়কে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেফমুবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (১০ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত জামালপুর-দেওয়ানগঞ্জ মহাসড়ক অবরোধ করে ছাত্ররা এ কর্মসূচি পালন করেন। এসময় ওই এলাকায় সকাল থেকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরনের ব্যানার, পোস্টার প্রদর্শন করে ‘সারা বাংলায় খবর দে, কোটা প্রথা কবর দে’ ‘সোনার বাংলা গড়তে হলে, মেধার অবমূল্যায়ন বন্ধ করতে হবে’, ‘আমার সোনার বাংলায় খাই নাই বৈষম্যের ঠাঁই নাই’ এমন অনেক কোটাবিরোধী স্লোগান দিতে থাকেন। এসময় জণগণে সাময়িক দুর্ভোগের জন্য সড়কের একপাশে ছাত্ররা লিখেন—‘রাষ্ট্র সংস্কার কাজ চলতেছে, সাময়িক অসুবিধার জন্য দুঃখিত।আন্দোলনকারীদের মধ্যে গণিত বিভাগের রমজান আলী নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘এর আগেও শিক্ষার্থীরা সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছেন। যে বৈষম্যের জন্য দেশ স্বাধীন করা হয়েছে, সেই বৈষম্য আমরা মেনে নেব না।

এ সময় বঙ্গমাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটাবিরোধী আন্দোলনের আহ্বায়ক ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী লিটন মিয়া বলেন, ‘বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে চলতে হলে কোটা ব্যবস্থার সংস্কার করতে হবে। মেধাবীদের বঞ্চিত করে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়া সম্ভব নয়।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কোটার সংস্কার চাই। যারা কোটা পাওয়ার অধিকার রাখে তাদের অবশ্যই সেই অধিকার দেওয়া হোক। কিন্তু অতিরিক্ত কোটা দেয়ার মাধ্যমে বিপুলসংখ্যক মেধাবী বঞ্চিত হচ্ছে।’

এ বিষয়ে মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজু আহাম্মদ বলেন, ছাত্রদের কর্মসূচি শেষ হয়েছে। বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

 

Skip to toolbar